০৭:৩৬ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সাবেক সাংসদ মমতাজ বেগমের সভাপতিত্বধীন স্কুল ২৪ তম, প্রথম হয়েছে ধল্লা ইউনিয়ন কাউন্সিল উচ্চ বিদ্যালয়

মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলায় এবার  এসএসসি পরীক্ষায় সব্বোর্চ (২৩) জন জিপিএ-৫সহ পাশের হার ৯৪%৩৩ পেয়ে   উপজেলার ২৪টি উচ্চ বিদ্যালয়ের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। উপজেলার প্রাচীন বিদ্যাপীঠ ধল্লা ইউনিয়ন কাউন্সিল উচ্চ  বিদ্যালয়। এছাড়া  সর্বশেষ ২৪ তম  স্থানে রয়েছে   মানিকগঞ্জ-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও  উপজেলার আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব মমতাজ বেগম নিজে  যে স্কুলের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন উপজেলার  সাহরাইল উচ্চ বিদ্যালয়।
ফলাফল বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে,  ঢাকা  শিক্ষা বোর্ডের অধীনে মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর উপজেলা থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ২ হাজার ৯ শ  ৬৯শিক্ষার্থী। পাস করেছে ২ হাজার ৩শ ৩২ শিক্ষার্থী, ফেল করেছে ৬৩৩ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১শ ১ জন শিক্ষার্থী। সিংগাইর উপজেলায় জিপিএ-৫ এ- এগিয়ে রয়েছে উপজেলার প্রাচীন বিদ্যাপীঠ  ধল্লা ইউনিয়ন কাউন্সিল উচ্চ বিদ্যালয়। এ বছর ধল্লা ইউনিয়ন কাউন্সিল  উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় ১৪২ জন অংশ নিয়ে পাস করে ১৩৩ জন পরীক্ষার্থী ফেল করেছে ৯ জন। তাদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৩ জন শিক্ষার্থী। পাসের হার ৯৪ দশমিক ৩৩ শতাংশ।
উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে খারাপ ফলাফল করেছে , মানিকগঞ্জ-২ আসনের সাবেক সাংসদ ও  উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব মমতাজ বেগমের সভাপতিত্বধীন সাহরাইল উচ্চ বিদ্যালয় । এ  স্কুল থেকে এবছর এসএসসি পরীক্ষায় ১৭৬ জন অংশ নিয়ে পাস করে ৯৫ জন, ফেল করেছে ৮১ জন  পরীক্ষার্থী। কোন পরীক্ষার্থী  জিপিএ-৫  পাইনি।। পাসের হার ৫৪ দশমিক ২৯ শতাংশ।
২য় স্থানে আছে নবগ্রাম বহুমুখী  উচ্চ বিদ্যালয় । এ  স্কুল থেকে এবছর এসএসসি পরীক্ষায় ৯৬ জন অংশ নিয়ে পাস করেছে ৮৮ , ফেল  করেছে ৮ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। পাসের হার ৯১ দশমিক ৬৭ শতাংশ।
 এ উপজেলায় সবচেয়ে বেশি পরীক্ষার্থী  অংশনেয় সিংগাইর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়। এ স্কুল থেকে এ বছর  ২৮১ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাশ করেছে  ২৪৩ , ফেল করেছে ৩৮ জন পরীক্ষার্থী।  জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৮ জন। পাসের হার ৮৭%১০ শতাংশ। তারা ৫ স্থান অধিকার করেছে।
 ২৪টি বিদ্যালয়ের মধ্যে ৭টি বিদ্যালয় থেকে কোনো পরীক্ষার্থী জিপি এ ৫ পায়নি।  সে গেুলো হলো,মজির উদ্দিন, জার্মিত্তা সত্য গোবিন্দ, সাহরাইল, রায়দক্ষিণ কোহিনুর মেমোরিয়াল,ইসলামপুর নবদিগন্ত, বশির উদ্দিন ফাউন্ডেশন,চকপালপাড়া এস.ই,এস.ডি.পি উচ্চ বিদ্যালয়।
Tag :
About Author Information

জনপ্রিয় সংবাদ

পারফেক্ট ফুটওয়্যার লিমিটেডের বার্ষিক ডিলার সম্মেলন অনুষ্ঠিত

সাবেক সাংসদ মমতাজ বেগমের সভাপতিত্বধীন স্কুল ২৪ তম, প্রথম হয়েছে ধল্লা ইউনিয়ন কাউন্সিল উচ্চ বিদ্যালয়

প্রকাশ: ০৬:০৪:১৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪
মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলায় এবার  এসএসসি পরীক্ষায় সব্বোর্চ (২৩) জন জিপিএ-৫সহ পাশের হার ৯৪%৩৩ পেয়ে   উপজেলার ২৪টি উচ্চ বিদ্যালয়ের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। উপজেলার প্রাচীন বিদ্যাপীঠ ধল্লা ইউনিয়ন কাউন্সিল উচ্চ  বিদ্যালয়। এছাড়া  সর্বশেষ ২৪ তম  স্থানে রয়েছে   মানিকগঞ্জ-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও  উপজেলার আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব মমতাজ বেগম নিজে  যে স্কুলের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন উপজেলার  সাহরাইল উচ্চ বিদ্যালয়।
ফলাফল বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে,  ঢাকা  শিক্ষা বোর্ডের অধীনে মানিকগঞ্জ জেলার সিংগাইর উপজেলা থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে ২ হাজার ৯ শ  ৬৯শিক্ষার্থী। পাস করেছে ২ হাজার ৩শ ৩২ শিক্ষার্থী, ফেল করেছে ৬৩৩ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১শ ১ জন শিক্ষার্থী। সিংগাইর উপজেলায় জিপিএ-৫ এ- এগিয়ে রয়েছে উপজেলার প্রাচীন বিদ্যাপীঠ  ধল্লা ইউনিয়ন কাউন্সিল উচ্চ বিদ্যালয়। এ বছর ধল্লা ইউনিয়ন কাউন্সিল  উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় ১৪২ জন অংশ নিয়ে পাস করে ১৩৩ জন পরীক্ষার্থী ফেল করেছে ৯ জন। তাদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৩ জন শিক্ষার্থী। পাসের হার ৯৪ দশমিক ৩৩ শতাংশ।
উপজেলার মধ্যে সবচেয়ে খারাপ ফলাফল করেছে , মানিকগঞ্জ-২ আসনের সাবেক সাংসদ ও  উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব মমতাজ বেগমের সভাপতিত্বধীন সাহরাইল উচ্চ বিদ্যালয় । এ  স্কুল থেকে এবছর এসএসসি পরীক্ষায় ১৭৬ জন অংশ নিয়ে পাস করে ৯৫ জন, ফেল করেছে ৮১ জন  পরীক্ষার্থী। কোন পরীক্ষার্থী  জিপিএ-৫  পাইনি।। পাসের হার ৫৪ দশমিক ২৯ শতাংশ।
২য় স্থানে আছে নবগ্রাম বহুমুখী  উচ্চ বিদ্যালয় । এ  স্কুল থেকে এবছর এসএসসি পরীক্ষায় ৯৬ জন অংশ নিয়ে পাস করেছে ৮৮ , ফেল  করেছে ৮ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। পাসের হার ৯১ দশমিক ৬৭ শতাংশ।
 এ উপজেলায় সবচেয়ে বেশি পরীক্ষার্থী  অংশনেয় সিংগাইর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়। এ স্কুল থেকে এ বছর  ২৮১ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাশ করেছে  ২৪৩ , ফেল করেছে ৩৮ জন পরীক্ষার্থী।  জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৮ জন। পাসের হার ৮৭%১০ শতাংশ। তারা ৫ স্থান অধিকার করেছে।
 ২৪টি বিদ্যালয়ের মধ্যে ৭টি বিদ্যালয় থেকে কোনো পরীক্ষার্থী জিপি এ ৫ পায়নি।  সে গেুলো হলো,মজির উদ্দিন, জার্মিত্তা সত্য গোবিন্দ, সাহরাইল, রায়দক্ষিণ কোহিনুর মেমোরিয়াল,ইসলামপুর নবদিগন্ত, বশির উদ্দিন ফাউন্ডেশন,চকপালপাড়া এস.ই,এস.ডি.পি উচ্চ বিদ্যালয়।